কিছুক্ষন অন্তর অন্তর এক গ্লাস করে পানি পান করলে শরীরের কী কী উপকার হয়


এটা প্রত্যেক মানুষই জানে যে একটা মানুষের শরীরে প্রচুর পরিমানে পানির প্রয়োজন। যদি দিনে ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করা যায় তাহলে তা শরীরের জন্য অনেক উপকারী। কিন্তু পানি একবারে পান করা যাবে না, কিছু সময় পর পর পানি পান করতে হবে। 

শরীর সচল রাখতে এবং সুস্থ রাখতে হলে পানি নিয়ম মেনে পান করতে হবে। নিয়ম মেনে পানি পান করলে শরীরের ওজনও কমে। 

তবে একটা জিনিস সকলের মাঝেই লক্ষ্য করা যায় যে, পানি পানের ক্ষেত্রে কেউই নিয়ম মেনে পানি পান করে না। এক কথায় পানি পানের ব্যাপারটি কেউ গুরুত্ব দিয়ে ভাবে না। অধিকাংশ মানুষ ঠিক ততটাই পানি পান করে যতটুকু তেষ্টা মেটাতে দরকার। কিন্তু পানি পানের ক্ষেত্রে অবশ্যই নিয়মের কথাটা মাথায় রাখতেই হবে। এতেই শরীরের উপকার হবে।।।

তাহলে এবার জেনে নেওয়া যাক, প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি নিয়ম মেনে পান করলে শরীরের কি কি উপকার হয়?  

১.কিছুক্ষন পর পর এক গ্লাস করে পানি পান করলে শরীর সতেজ হয় এবং কাজ করার শক্তি বাড়ে। শরীরে যখন ক্লান্তি ভাব চলে আসে তখন বুজতে হবে শরীরের পানির ঘাটতি আছে। আর পানির এই ঘাটতির ফলে কাজ করার ইচ্ছা কমে যেতে থাকে। আবার খুব কম পানি যদি পান করা হয় তাহলে প্রতিদিনের সাধারন যেই দায়িত্ব গুলো সেইগুলা পালন করতেও অসুবিধা হয়। 

২.যদি পরিমান মত পানি শরীরে থাকে তাহলে হজমশক্তি স্বাভাবিক থাকে।আর যদি খাবার ভালভাবে হজম হয় তাহলে শরীরের ওজনও কমবে। প্রতিদিন যদি এক গ্লাস করে পানি কিছুসময় পর পর পান করা হয় তাহলে অপ্রয়োজনীয় যেই খাবার গুলো সেই খাবার খাওয়ার আর ইচ্ছা থাকে না। আর এর ফলে ওজনও নিয়ন্ত্রনে থাকে। 

৩.সব সময় যদি পানি পান করা হয় তাহলে ত্বক থাকে পরিষ্কার। শরীরে অপ্রয়োজনীয় দ্রব জমে থাকার ফলে ত্বকের ক্ষতি হয়। আর এই ক্ষতি থেকে ত্বককে রক্ষা করতে হলে প্রয়োজন পানি। অল্প সময় পর পর এক গ্লাস করে পানি পান করলে ত্বকের ভেতর জমে থাকা ময়লা দূর করে। এর ফলে চেহারার উজ্জ্বলতা ফিরে আসে। যদি আমাদের ত্বক প্রয়োজন মত পানি পায় তাহলে  ত্বক মসৃণ হয় এবং কোমল হয়। 

তাই শরীরকে সুস্থ ও সতেজ রাখলে হলে সব সময় পানি পান করতে হবে৷ পাশাপাশি হজম শক্তি ও ত্বককে অপ্রয়োজনীয় দ্রব থেকে দূরে রাখতে পানির গুরুত্ব অপরিসীম। তাই আমাদের উচিৎ সব সময় পানি পান করা।

মন্তব্য করুন

নবীনতর পূর্বতন